Shop

Shop

(Showing 1 – 12 products of 126 products)

Show:

১১ ইঞ্চি পিৎজা

ডেসক্রিপশন:

ঘরেই তৈরি করুন মজাদার পিৎজা।

পিৎজা খেতে ভালোবাসেন অনেকেই। হুটহাট বাইরে না গিয়ে ঘরেই বানিয়ে খেতে পারেন মজাদার পিৎজা। স্বাদ এবং পুষ্টি অটুট রেখেই ঘরে বসে তৈরি করুন পিৎজা। রইলো রেসিপি- প্রথমে ময়দা ২ কাপ, ১ টেবিল চামচ চিনি, ১ চা চামচ লবণ, ১ টেবিল চামচ গুড়া দুধ, ১ চা চামচ ইস্ট, ডিম ১টা। এসব উপকরণ একসাথে মিশিয়ে ভাল করে মাখতে হবে, ১০ মিনিট পর ১ টেবিল চামচ সয়াবিন তেল দিয়ে আবার ভাল করে ১০ মিনিট মাখতে হবে। ভাল করে মাখা হলে উষ্ণ কোন জায়গায় খামির ঢেকে রেখে দিতে হবে প্রায় ২ ঘণ্টা। এরপর যেকোন মাংসের কিমা আধা কেজি, আদা বাটা, রসুন বাটা, ধনে পাতা ও জিরাগুড়া, মরিচ কুচি সব একসাথে পরিমাণমত মেখে নিয়ে সিদ্ধ করতে হবে। পরে ইচ্ছেমত পেয়াজকুচি, শসা, টমেটো দেয়া যাবে। সিদ্ধ করার পর ফিলারের সাথে টমেটো সস, মেয়োনেজ মাখাতে হবে। খামির প্রস্তুত হয়ে গেলে পিৎজা তৈরির জন্য গোল আকারের যেকোন পাত্রে খামির বসাতে হবে, তারপর এর ওপর ১টা ডিম ফেটে নিয়ে অল্প একটু ব্রাশ করে তারপর ফিলার দিতে হবে। এরপর পছন্দমত সাজিয়ে নেয়া যাবে। শসাকুচি, টমেটো কুচি, পেয়াজের রিং (গোল করে কাটা পেয়াজের টুকরো), ধনে পাতা দিয়ে পিৎজার ওপরটা সাজাতে হবে। পনিরের টুকরোও দেয়া যাবে। এরপর পুরো পাত্রটি ওভেনে ২২০ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ১০-১৫ মিনিট বেক করতে হবে। ১৫ মিনিট পর ওভেন থেকে নামিয়ে পরিবেশন করুন গরম গরম মজাদার পিৎজা।

Pizza 11 inch

৬ ইঞ্চি পিৎজা

ডেসক্রিপশন:

Pizza 6 inch

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ বাজার লাগবে ডটকম সবসময় ভেঁজালমুক্ত আসল পণ্যটি গ্রাহকের কাছে পৌছে দিতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এক্ষেত্রে আমরা দৈনন্দিন কাঁচাবাজারের প্রায় সকল পণ্যই (শাক-সবজি, মাছ-গোশত ইত্যাদি) চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে অথবা বিক্রেতার নিকট থেকে সংগ্রহ করে থাকি। সরাসরি চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে সংগৃহীত পণ্যসমূহের ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদান করছে। এছাড়া যে সমস্ত পণ্যসমূহ (প্যাকেটজাত/মোড়কজাত – মুদি, ষ্টেশনারী, কসমেটিকস, টয়লেট্রিজ ইত্যাদি) আমরা সরাসরি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান (ইউনিলিভার, স্কয়ার কনজ্যুমার, ফ্রেশ, বিডি ফুড, আকিজ গ্রুপ ইত্যাদি) থেকে কালেক্ট করে গ্রাহকের নিকট পৌছে দিয়ে থাকি, সে-সমস্ত পণ্যসমূহের গুণগতমান এবং অরিজিনালিটির ক্ষেত্রে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিএসটিআই এবং অন্যান্য) সত্যায়ন বিবেচ্য। এক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম কোন ধরণের দায়ভার গ্রহণ করবে না। তবে নষ্ট/ক্ষয়ে যাওয়া/পঁচা/ব্যবহার অনুপযোগী অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য ডেলিভারীর ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম লাগবে ডটকম দায়ভার গ্রহণ করবে এবং তা পরিবর্তন অথবা মূল্য ফেরত প্রদানের ব্যবস্থা করবে।

৭ আপ ২ লিটার

ডেসক্রিপশন:

7 up 2 lit

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ বাজার লাগবে ডটকম সবসময় ভেঁজালমুক্ত আসল পণ্যটি গ্রাহকের কাছে পৌছে দিতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এক্ষেত্রে আমরা দৈনন্দিন কাঁচাবাজারের প্রায় সকল পণ্যই (শাক-সবজি, মাছ-গোশত ইত্যাদি) চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে অথবা বিক্রেতার নিকট থেকে সংগ্রহ করে থাকি। সরাসরি চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে সংগৃহীত পণ্যসমূহের ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদান করছে। এছাড়া যে সমস্ত পণ্যসমূহ (প্যাকেটজাত/মোড়কজাত – মুদি, ষ্টেশনারী, কসমেটিকস, টয়লেট্রিজ ইত্যাদি) আমরা সরাসরি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান (ইউনিলিভার, স্কয়ার কনজ্যুমার, ফ্রেশ, বিডি ফুড, আকিজ গ্রুপ ইত্যাদি) থেকে কালেক্ট করে গ্রাহকের নিকট পৌছে দিয়ে থাকি, সে-সমস্ত পণ্যসমূহের গুণগতমান এবং অরিজিনালিটির ক্ষেত্রে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিএসটিআই এবং অন্যান্য) সত্যায়ন বিবেচ্য। এক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম কোন ধরণের দায়ভার গ্রহণ করবে না। তবে নষ্ট/ক্ষয়ে যাওয়া/পঁচা/ব্যবহার অনুপযোগী অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য ডেলিভারীর ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম লাগবে ডটকম দায়ভার গ্রহণ করবে এবং তা পরিবর্তন অথবা মূল্য ফেরত প্রদানের ব্যবস্থা করবে।

৭ আপ ৫০০মিলি

ডেসক্রিপশন:

7Up 500 ml

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ বাজার লাগবে ডটকম সবসময় ভেঁজালমুক্ত আসল পণ্যটি গ্রাহকের কাছে পৌছে দিতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এক্ষেত্রে আমরা দৈনন্দিন কাঁচাবাজারের প্রায় সকল পণ্যই (শাক-সবজি, মাছ-গোশত ইত্যাদি) চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে অথবা বিক্রেতার নিকট থেকে সংগ্রহ করে থাকি। সরাসরি চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে সংগৃহীত পণ্যসমূহের ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদান করছে। এছাড়া যে সমস্ত পণ্যসমূহ (প্যাকেটজাত/মোড়কজাত – মুদি, ষ্টেশনারী, কসমেটিকস, টয়লেট্রিজ ইত্যাদি) আমরা সরাসরি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান (ইউনিলিভার, স্কয়ার কনজ্যুমার, ফ্রেশ, বিডি ফুড, আকিজ গ্রুপ ইত্যাদি) থেকে কালেক্ট করে গ্রাহকের নিকট পৌছে দিয়ে থাকি, সে-সমস্ত পণ্যসমূহের গুণগতমান এবং অরিজিনালিটির ক্ষেত্রে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিএসটিআই এবং অন্যান্য) সত্যায়ন বিবেচ্য। এক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম কোন ধরণের দায়ভার গ্রহণ করবে না। তবে নষ্ট/ক্ষয়ে যাওয়া/পঁচা/ব্যবহার অনুপযোগী অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য ডেলিভারীর ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম লাগবে ডটকম দায়ভার গ্রহণ করবে এবং তা পরিবর্তন অথবা মূল্য ফেরত প্রদানের ব্যবস্থা করবে।

Place holder

অরেঞ্জ ট্যাংক ৭৫০ গ্ৰাম

ডেসক্রিপশন:

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ বাজার লাগবে ডটকম সবসময় ভেঁজালমুক্ত আসল পণ্যটি গ্রাহকের কাছে পৌছে দিতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এক্ষেত্রে আমরা দৈনন্দিন কাঁচাবাজারের প্রায় সকল পণ্যই (শাক-সবজি, মাছ-গোশত ইত্যাদি) চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে অথবা বিক্রেতার নিকট থেকে সংগ্রহ করে থাকি। সরাসরি চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে সংগৃহীত পণ্যসমূহের ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদান করছে। এছাড়া যে সমস্ত পণ্যসমূহ (প্যাকেটজাত/মোড়কজাত – মুদি, ষ্টেশনারী, কসমেটিকস, টয়লেট্রিজ ইত্যাদি) আমরা সরাসরি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান (ইউনিলিভার, স্কয়ার কনজ্যুমার, ফ্রেশ, বিডি ফুড, আকিজ গ্রুপ ইত্যাদি) থেকে কালেক্ট করে গ্রাহকের নিকট পৌছে দিয়ে থাকি, সে-সমস্ত পণ্যসমূহের গুণগতমান এবং অরিজিনালিটির ক্ষেত্রে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিএসটিআই এবং অন্যান্য) সত্যায়ন বিবেচ্য। এক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম কোন ধরণের দায়ভার গ্রহণ করবে না। তবে নষ্ট/ক্ষয়ে যাওয়া/পঁচা/ব্যবহার অনুপযোগী অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য ডেলিভারীর ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম লাগবে ডটকম দায়ভার গ্রহণ করবে এবং তা পরিবর্তন অথবা মূল্য ফেরত প্রদানের ব্যবস্থা করবে।

Orange Tang 

অ্যাঞ্জেলিক এয়ার ফ্রেশনার ৩০০ মিলি

ডেসক্রিপশন:

Angelic Fresh Air Freshener Fruit Punch

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ বাজার লাগবে ডটকম সবসময় ভেঁজালমুক্ত আসল পণ্যটি গ্রাহকের কাছে পৌছে দিতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এক্ষেত্রে আমরা দৈনন্দিন কাঁচাবাজারের প্রায় সকল পণ্যই (শাক-সবজি, মাছ-গোশত ইত্যাদি) চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে অথবা বিক্রেতার নিকট থেকে সংগ্রহ করে থাকি। সরাসরি চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে সংগৃহীত পণ্যসমূহের ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদান করছে। এছাড়া যে সমস্ত পণ্যসমূহ (প্যাকেটজাত/মোড়কজাত – মুদি, ষ্টেশনারী, কসমেটিকস, টয়লেট্রিজ ইত্যাদি) আমরা সরাসরি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান (ইউনিলিভার, স্কয়ার কনজ্যুমার, ফ্রেশ, বিডি ফুড, আকিজ গ্রুপ ইত্যাদি) থেকে কালেক্ট করে গ্রাহকের নিকট পৌছে দিয়ে থাকি, সে-সমস্ত পণ্যসমূহের গুণগতমান এবং অরিজিনালিটির ক্ষেত্রে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিএসটিআই এবং অন্যান্য) সত্যায়ন বিবেচ্য। এক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম কোন ধরণের দায়ভার গ্রহণ করবে না। তবে নষ্ট/ক্ষয়ে যাওয়া/পঁচা/ব্যবহার অনুপযোগী অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য ডেলিভারীর ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম লাগবে ডটকম দায়ভার গ্রহণ করবে এবং তা পরিবর্তন অথবা মূল্য ফেরত প্রদানের ব্যবস্থা করবে।

আখের চিনি ১ কেজি

ডেসক্রিপশন:

ঝকঝকে সাদা চিনি নয়, লালচে আখের চিনি গ্রহণের অভ্যাস গড়ে তুলুন !

বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্য-বিশেষজ্ঞরা চিনি ও লবণের ব্যাপারে সতর্ক করে যাচ্ছেন নিয়মিতভাবে। বিশেষজ্ঞদের মত হলো, ধীরে ধীরে খাবারে চিনি ও লবণের ব্যবহার কমাতে হবে। কিন্তু খাবারের স্বাদ আনতে এই দুটি বস্তু এখনও অপরিহার্য। তাই বাদ দেয়াও সহজ নয়।

স্বাস্থ্যবিধি মানলে, চিনি ছাড়া অন্য খাদ্য উপাদান থেকে চিনি গ্রহণ করার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। ফলমূল, শস্য, বাদাম এবং শাকসবজি থেকে দেহের জন্য প্রয়োজনীয় চিনি পাওয়া যায়। এর বাইরে দানাদার চিনির প্রয়োজন খুব একটা হয় না। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় যে শর্করা জাতীয় খাবার থাকে, তাতে যে পরিমাণ চিনি থাকে, তা আমাদের দেহে গ্লুকোজে রূপান্তরিত হয়। পরে দেহে তা শক্তি উৎপাদন করে। প্রয়োজনের তুলনায় বেশি চিনি গ্রহণ করলে দেহের জন্য তা ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

যদি খেতেই হয়, সেক্ষেত্রে ঝকঝকে, ঝরঝরে মিহি দানার চিনির বদলে মোটা দানার বাদামী চিনি গ্রহণ করা ভাল। এটিই স্বাস্থ্যকর।

বাজার থেকে ভেজাল ও ক্ষতিকর রাসায়নিক মিশ্রিত চিনি না কিনে ভাল চিনি কেনার অভ্যাস সহজেই গড়ে তোলা যায়। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করে ঝকঝকে সাদা চিনি। ঝরঝরে মিহি দানার এই চিনি আকর্ষণীয় প্যাকেটে বাজারজাত করার কারণে ক্রেতাদের বেশি টানে। অন্যদিকে দেশে তৈরি আখের চিনি স্বাস্থ্যকর হলেও এটি দেখতে লালচে, এর আর্দ্রতা বেশি। অনেক সময় ক্রেতারা এই চিনি কিনতে আগ্রহ দেখান না। কিন্তু দেশীয় চিনিকলে উৎপাদিত চিনি তুলনামূলকভাবে নিরাপদ এবং শিশু খাদ্য হিসেবে উপযোগী।

শিল্প-কারখানা রিফাইনিং (পরিশোধিত) পদ্ধতিতে চিনি তৈরির সময় ভিটামিন, মিনারেল, প্রোটিন, এনজাইম এবং অন্যান্য উপকারি পুষ্টি উপাদান দূর হয়ে যায়। এই চিনি মানবদেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর। বিদেশ থেকে আমদানীকৃত চিনি তৈরিতে সবসময় আখ ব্যবহার করা হয় না। আখের বিকল্প উপাদান দিয়েও চিনি তৈরি হয়। এই চিনিতে মিষ্টতা আনতে বাড়তি রাসায়নিক মিশ্রিত করা হয়। আর পরিশোধন প্রক্রিয়ায় চিনিতে যুক্ত হয় আরও ক্ষতিকর নানা উপাদান। পরিষ্কার বা সাদা করার জন্য ব্যবহার করা হয় ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান সালফার, হাড়ের গুঁড়ো।

বাংলাদেশ খাদ্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ইনস্টিটিউটের পরীক্ষায় দেখা গেছে, আমদানিকৃত পরিশোধিত এবং দেশে উৎপাদিত পরিশোধিত চিনি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আখ থেকে উৎপাদিত দেশি চিনিতে ক্যালসিয়ামের মাত্রা ১৬০ দশমিক ৩২, যা পরিশোধিত চিনিতে ১ দশমিক ৫৬ থেকে ২ দশমিক ৬৫ ভাগ। পটাশিয়াম দেশি চিনিতে ১৪২ দশমিক ৯ ভাগ, পরিশোধিত চিনিতে শূন্য দশমিক ৩২ থেকে শূন্য দশমিক ৩৫ ভাগ। ফসফরাস দেশি চিনিতে ২ দশমিক ৫ থেকে ১০ দশমিক ৭৯ ভাগ আর পরিশোধিত চিনিতে ২ দশমিক ৩৫ ভাগ। আয়রন দেশি চিনিতে শূন্য দশমিক ৪২ থেকে ৬ ভাগ আর পরিশোধিত চিনিতে শূন্য দশমিক ৪৭ ভাগ। ম্যাগনেশিয়াম দেশি চিনিতে শূন্য দশমিক ১৫ থেকে ৩ দশমিক ৮৬ ভাগ আর পরিশোধিত চিনিতে শূন্য দশমিক ৬৬ থেকে ১ দশমিক ২১ ভাগ। সোডিয়াম দেশি চিনিতে শূন্য দশমিক ৬ ভাগ, আর পরিশোধিত চিনিতে শূন্য দশমিক ২ ভাগ।

এসব কারণে বিশেষজ্ঞরা এখন দেশে উৎপাদিত বাদামী/লালচে চিনি খাবার পরামর্শ দিচ্ছেন। বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্যশিল্প কর্পোরেশন প্যাকেটজাত করে বিক্রি করতেও শুরু করেছে এই চিনি। ক্রেতারা পুরনো দিনের মতো আবার লালচে চিনির অভ্যাস গড়ে তুলছেন। এটি কম ক্ষতিকর। তবে শেষে একটি কথার পুনরাবৃত্তি না করলেই নয়। পরিশোধিত সাদা চিনির চেয়ে লালচে চিনির ক্ষতি কম, কিন্তু সবচেয়ে ভাল খুব কম চিনি গ্রহণ করা এবং ধীরে ধীরে খাদ্যতালিকা থেকে এটি বাদ দেয়া।

Akher chini Desi 1kg

আড়ং ডেইরি পিওর ঘি ৪০০ গ্রাম

ডেসক্রিপশন:

খাঁটি ঘিয়ের বিস্ময়কর ৫ গুণ !

এই শীতে শরীর সুস্থ রাখতে দরকার পুষ্টিকর খাবার। খাঁটি ঘিয়ের রয়েছে বিস্ময়কর কিছু গুণ; যা এই শীতে শরীরের জন্য দারুণ উপকারী। এটি স্যাচুরেটেড ফ্যাট বা সম্পৃক্ত চর্বির উৎস। যদিও ঘি খাওয়ার বিষয়ে নানা বিতর্ক রয়েছে, তবে আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে ঘি স্বাস্থ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপাদান বলে বর্ণনা করা হয়েছে।

সর্দি-কাশি সারাতে, দুর্বলতা কাটাতে, ত্বকের সমস্যা দূর করতে ঘি ব্যবহৃত হয়। এ ছাড়া ঘিয়ে পেঁয়াজ ভেজে খেলে গলা ব্যথা সারে। চ্যবনপ্রাশ তৈরির অন্যতম উপকরণ এটি। ‘ইন্ডিয়ান জার্নাল অব মেডিকেল রিসার্চ’ এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

ভারতের প্রখ্যাত পুষ্টিবিদ সন্ধ্যা গুগনানির মতে, শীতকালই ঘি খাওয়ার উপযুক্ত সময়। এ সময় এটি সহজে হজম হয় ও শরীর গরম রাখে। এতে ভিটামিন এ, ডি, ই ও কে আছে।

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখার পাশাপাশি পেশি সুগঠিত রাখতে ঘি কার্যকর। এ ছাড়া শীতে ত্বক শুষ্ক হয়ে যাওয়া ঠেকাতে পারে ঘি। প্রতিদিন সকালে এক বা দুই চা-চামচ ঘি খাওয়া যেতে পারে। এরপর গ্রিন টি বা সাধারণ চা ও কফি খেলে উপকার পাওয়া যায়।

ঘি অবশ্য অল্প পরিমাণে খাওয়াই ভালো। যাঁদের কোলস্টেরলের সমস্যা আছে তাঁদের ঘি এড়িয়ে চলা উচিত।

প্রতিদিন কেন এক চামচ ঘি খাবেন:
১. ত্বকের শুষ্কতা দূর করে তা আর্দ্র রাখে।
২. ভিটামিন এ থাকায় এটি চোখের জন্য ভালো। গ্লুকোমা রোগীদের জন্য উপকারী। এটি চোখের চাপ নিয়ন্ত্রণ করে।
৩. ঘি খেলে যে হরমোন নিঃসরণ হয়, এতে শরীরের সন্ধিগুলো ঠিক থাকে।
৪. এটি অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ বলে অন্য খাবার থেকে ভিটামিন ও খনিজ শোষণ করে শরীরকে রোগ প্রতিরোধে সক্ষম করে তোলে।
৫. পোড়া ক্ষত সারাতে কাজ করে ঘি। আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে আছে ঘি খেলে মস্তিষ্কের ধার বাড়ে ও স্মৃতিশক্তি বাড়ে।

-তথ্যসূত্র: টিএনএন।

Aarong Dairy Pure Ghee(ghi)

আপেল কেজি ১ কেজি

ডেসক্রিপশন:

Apple 1kg

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ বাজার লাগবে ডটকম সবসময় ভেঁজালমুক্ত আসল পণ্যটি গ্রাহকের কাছে পৌছে দিতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এক্ষেত্রে আমরা দৈনন্দিন কাঁচাবাজারের প্রায় সকল পণ্যই (শাক-সবজি, মাছ-গোশত ইত্যাদি) চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে অথবা বিক্রেতার নিকট থেকে সংগ্রহ করে থাকি। সরাসরি চাষী/উৎপাদকের নিকট থেকে সংগৃহীত পণ্যসমূহের ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদান করছে। এছাড়া যে সমস্ত পণ্যসমূহ (প্যাকেটজাত/মোড়কজাত – মুদি, ষ্টেশনারী, কসমেটিকস, টয়লেট্রিজ ইত্যাদি) আমরা সরাসরি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান (ইউনিলিভার, স্কয়ার কনজ্যুমার, ফ্রেশ, বিডি ফুড, আকিজ গ্রুপ ইত্যাদি) থেকে কালেক্ট করে গ্রাহকের নিকট পৌছে দিয়ে থাকি, সে-সমস্ত পণ্যসমূহের গুণগতমান এবং অরিজিনালিটির ক্ষেত্রে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিএসটিআই এবং অন্যান্য) সত্যায়ন বিবেচ্য। এক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম কোন ধরণের দায়ভার গ্রহণ করবে না। তবে নষ্ট/ক্ষয়ে যাওয়া/পঁচা/ব্যবহার অনুপযোগী অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য ডেলিভারীর ক্ষেত্রে বাজার লাগবে ডটকম লাগবে ডটকম দায়ভার গ্রহণ করবে এবং তা পরিবর্তন অথবা মূল্য ফেরত প্রদানের ব্যবস্থা করবে।

ইউ এন্ড মি

ডেসক্রিপশন:

 

কনডম ব্যবহারে যে দশটি ভুল!

স্বাস্থ্যগত সমস্যা এড়াতে কনডমের সঠিক ব্যবহার অতি জরুরি বিষয়। তাই স্বাস্থ্য সংক্রান্ত শিক্ষায় বিশেষজ্ঞরা কনডম ব্যবহারের সুষ্ঠু ও ভুল পদ্ধতি নিয়ে নানা তথ্য প্রদান করেন। আমেরিকার সেন্টরস ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন জানায়, প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষদের কনডম ব্যবহারে ভুলের হার ১৮ শতাংশ। অথচ অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণ এড়াতে কনডমের ভূমিকা ৯৮ শতাংশ। ফক্স নিউজের প্রতিবেদনে কনডম ব্যবহারের ভুল তুলে ধরেছেন বিশেষজ্ঞরা।

১. বেশি দেরি করা : অনেকে মনে করেন, বীর্যপাতের আগেই কনডম প্রয়োজন। নর্থওয়েস্টর্ন ইউনিভার্সিটির গাইনোকলজির গবেষক লরেন স্ট্রেইচার জানান, বীর্যপাত না হলেও কনডম ছাড়া গর্ভধারণ বা যৌন সংক্রমণ থেকে নিরাপদ নন। তাই প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত এটি অতি জরুরি।

২. ঠিক আছে তো? : ৮৩ শতাংশ নারী এবং ৭৫ শতাংশ পুরুষ কনডম ব্যবহারের আগে তা ঠিক রয়েছে কিনা তা পরখ করেন না। কনডম একটু বেশি চটচটে বা কুঁচকানো বা ভাঁজ খেয়ে রয়েছে কিনা তা ব্যবহারের আগে দেখে নিতে হয়।

৩. ভুল পদ্ধতিতে ধারণ : নিজেরই পরতে হয় এবং তা বেশ সহজ মন হয়। কিন্তু এ সাধারণ কাজেও যথেষ্ট ভুলের হার লক্ষ করা গেছে। কনডমের প্যাকেটে পরিধানের সঠিক পদ্ধতি লেখা রয়েছে। যাদের বুঝতে সমস্যা তারাও ধরতে পারবেন কিভাবে এটি পরতে হবে। মনে রাখবেন, কনডমের পুরোটুকু পুরুষাঙ্গ বরাবর নামিয়ে নিন। পরার আগে আঙুলের চাপে কনডমের অগ্রভাগের বাতাস বের করে নেবেন।

৪. দুটো কনডমের ব্যবহার : খুব সাধারণ অংকের হিসাব। একটি কনডম গর্ভধারণ প্রতিরোধ করে। কাজেই একসঙ্গে দুটো ব্যবহার করলে তো নিশ্চিন্ত। অথচ দুটো কনডম ব্যবহারের মতো ঝুঁকিপূর্ণ বোকামি আর হয় না। এতে ওপরেরটি যেকোনো সময় পিছলে বেরিয় যাওয়ার সম্ভাবনা প্রায় শতভাগ। কাজেই এটি মারাত্মক বিপদে ফেলে দিতে পারে সঙ্গিনীকে।

৫. খুব দ্রুত খুলে ফেলা : বেশি দেরিতে পরা যেমন বিপদজনক, তেমনি ঝুঁকিতে ফেলবে বেশি আগে খুলে ফেলা হলে। ইন্ডিয়ানা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানান, ১৩.৬ থেকে ৪৪.৭ শতাংশ মানুষ যৌনক্রিয়া শেষ হওয়ার আগেই কনডম খুলে ফেলেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কনডম খুলে ফেলার পর বীর্যপাতের ঘটনা ঘটে।

৬. ভুল আকার বেছে নেওয়া : ওয়ান সাইজ ফিটস অল পদ্ধতিতে কনডম তৈরি করা হয় না। পুরুষাঙ্গে আকারে ভিন্নতা রয়েছে। আকার বুঝে কনডম ব্যবহার করা উচিত। কনডম ছোট হলে তা ফেটে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে। আবার বড় হলে তা যৌনকর্মের সময় বেরিয়ে আসার সম্ভাবনা থেকেই যায়। কাজেই আকার বুঝে কিনতে হবে।

৭. ওরাল সেক্সকে নিরাপদ মনে করা : কনডমের বিষয়ে সচেতন থাকার পরও যৌনসংক্রমণ ঘটে যেতে পারে ওরাল সেক্সের কারণে। মুখের লালায় ব্যাকটেরিয়া থাকে যা দেহের স্পর্শকাতর অংশে সংক্রমিত হতে পারে। তাই নগ্ন স্পর্শকাতর ত্বকে ওরাল সেক্স এড়িয়ে যাওয়া বুদ্ধিমানের কাজ। এ ক্ষেত্রেও কনডম নিরাপত্তা দিতে পারে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

৮. ভুল লুব্রিকেন্ট বেছে নেওয়া : কনডমকে পিচ্ছিল ও আরামদায়ক করার অন্যতম উপাদান লুব্রিকেন্ট। এ কাজে ভুল লুব্রিকেন্ট ব্যবহারে ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। উন্নতমানের লুব্রি ব্যবহার বাঞ্ছনীয়। কারণ যেকোনো তৈলাক্ত পদার্থ কনডমকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।

৯. ভুল উপায়ে সংরক্ষণ : মানিব্যাগে বা প্যান্টের পকেটে কনডম রেখে দেওয়া উচিত নয়। এতে কনডমের রাবারের দেহ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে ব্যবহারের সময় ফেটে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে। উন্নতমানের কনডমও চাপের মধ্যে রেখে দিলে তা নষ্ট হবে বলে ধরেই নেওয়া যায়।

১০. একেবারেই ব্যবহার না করা : অনেকেই কনডম ব্যবহার মোটেও পছন্দ করেন না। অথচ বিশেষজ্ঞরা বলেন, যার সঙ্গেই সংগম করেন না কেন, কনডমই একমাত্র নিরাপদ ব্যবস্থা।

U & Me Anatomic Condoms

ইনো লেমন ফ্লেভার ৫ পিস

ডেসক্রিপশন:

নিরাপত্তা:

এই ড্রাগ ব্যবহারের আগে, আপনার ডাক্তার কে আপনার বর্তমান ঔষধের তালিকার সম্পর্কে বলুন (যেমন ভিটামিন, ভেষজ ঔষধ ইত্যাদি), এলার্জি, বিদ্যমান রোগ, এবং বর্তমান স্বাস্থ্য অবস্থার (যেমন গর্ভাবস্থা, আসন্ন সার্জারি ইত্যাদি)। কিছু স্বাস্থ্য অবস্থার জন্য আপনার বেশি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার হতে পারে। ডাক্তারের নির্দেশ মেনে চলুন বা পণ্যের উপর মুদ্রিত নির্দেশ অনুসরণ করুন। ডোজ আপনার অবস্থার উপর ভিত্তি করে হয়। আপনার ডাক্তার কে বলুন আপনার অবস্থার উন্নতি হচ্ছে না অবনতি হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ কাউন্সেলিং পয়েন্ট নীচে তালিকাভুক্ত করা হয়ছে।

গর্ভবতী

গর্ভবতী পরিণত পরিকল্পনা

গর্ভাবস্থা

গলাধ: করণ না

ত্বক পরিচিতি এড়ানো

পরিমাণ অতিক্রম না

বুকের দুধ খাওয়ালে

যদি আপনি একই সময়ে অন্যান্য ওষুধ নেন এনো / Eno Powder এর প্রভাব পরিবর্তন হতে পারে। পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার ঝুঁকি বাড়াতে পারে বা সঠিকভাবে কাজ না করতে পারে। আপনার ব্যবহার করা সব ওষুধ, ভিটামিন, এবং ভেষজ ওষুধের সম্বন্ধে আপনার ডাক্তার কে বলুন যাতে আপনি ডাক্তার আপনাকে ওষুধের ঠিক প্রতিক্রিয়া সাহায্য করতে পারে। এনো / Eno Powder নিম্নলিখিত ওষুধ ও পণ্য সাথে প্রতিক্রিয়া করতে পারে:

Aluminum salts

Amphetamine

Amphetamines

Aspirin

Barbiturates

Benzphetamine

Dextroamphetamine

Doxycycline

Lisdexamfetamine

Lithium

Eno Lemon flavor 5 pich

ইফাদ সুজি ৫০০ গ্ৰাম

ডেসক্রিপশন:

সুজি খেজুরের হালুয়া

প্রয়োজনীয় উপাদানগুলো:

সুজি – ২ চামচ

খেজুর – ৩-৪ টি (চাইলে খেজুরের সিরাপ ব্যাবহার করতে পারেন)

ঘি – ১ চা চামচ

দুধ – হাফ কাপ(শিশুর বয়স ১ বছরের বেশি হলে গরুর দুধ।কম হলে বুকের দুধ / ফর্মুলা মিল্ক)

প্রস্তুত প্রণালী:

খেজুর ধুয়ে বিচি ছাড়িয়ে গরম পানিতে ১০ মিনিটের মত ভিজিয়ে চটকে ম্যাশ করে নিন।

প্যানে ১ চামচ পরিমান ঘি দিয়ে পরিমান মত সুজি হালকা বাদামি করে ভেজে নিতে হবে।

ভেজে নেওয়া সুজি পরিমান মত পানি দিয়ে রান্না করুন।

ঘন ঘন নেড়েচেড়ে রান্না করতে হবে যাতে করে দলা পেকে না যায়।

সুজি সেদ্ধ হয়ে এলে চটকে রাখা খেজুরের পেস্ট দিয়ে নেড়েচেড়ে আরো কিছুটা সময় রান্না করে নিন।

একটু পাতলা থাকা অবস্থায় নামিয়ে নিন।বাচ্চা যেমন ঘনত্বের খায় সে রকম করে নিবেন।

সুজিটা এভাবেও বাচ্চাকে খাওয়াতে পারেন চাইলে এর সাথে বুকের দুধ / ফর্মুলা মিল্ক যোগ করেও খাওয়াতে পারেন।

Ifad Suji

1 2 3 10 11
Scroll To Top
Close
Close
Shop
Filters
0 Wishlist
0 Cart

My Cart

Close

No products in the cart.

Shopping Now